বগুড়ায় বন্যাকবলিত পরিবারের পাশে ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম

0
83

প্রবীণ জাতীয় দলের ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের মালিকানাধীন মুশফিকুর রহিম ফাউন্ডেশন বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে ৩০০ বন্যাকবলিত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন, যাহা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের নিজস্ব জেলা।

মঙ্গলবার মুশফিকুর তার ভেরিফাইকৃত ফেসবুক পেজে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছিলেন যে

“যতদূর চোখ যায়, শুধু পানি আর পানি। দিগন্তে সবুজের হাতছানি। ভরাট যৌবনা নদীর বুক চিরে এগিয়ে চলা পালতোলা নৌকা আর মাছরাঙার জলকেলি। দর্শানার্থীদের জন্যে চোখ ঝলসানো সৌন্দর্য, আর নদীর দুপাশে বসবাসরত মানুষের জন্যে মূর্তিমান আতঙ্ক। একে করোনার ছোবল, তার উপর বন্যার নির্যাতন। স্বাভাবিক জীবনে হঠাৎ ছন্দপতন। সমস্ত ফসল, বসতবাড়ি পানির নিচে, ভয়ালদর্শন স্রোতে গ্রামের অনেকখানি নদীগর্ভে।

চিরকাল খেটে খাওয়া মানুষগুলো আজ বড্ড অসহায়। নিয়তি মেনে নেয়া সজল চোখে, আজ শুধুই সাহায্যের আকুতি। সব খবর জেনে সিদ্ধান্ত নেই, এই মানুষগুলোর কাছে আমার, সামান্য সম্মান মোড়ানো ভালোবাসা পৌছাতেই হবে। এটা আমার দায়িত্ব। এরপরের গল্পটা, শুধুই মুখে হাসি ফোটানোর গল্প, ”ফেসবুকে একটি আবেগময় পোস্টে মুশফিকুর লিখেছেন।

তিনি আরও লিখেছেন যে তাদের দুর্ভোগগুলি জেনে তিনি এই লোকগুলির পাশে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

“দু’দিন আগে আমার স্বপ্নের প্রকল্প মুশফিকুর রহিম ফাউন্ডেশন আনুষ্ঠানিকভাবে বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলা বোহাইল ইউনিয়নের বোহাইল গ্রাম ও ধরভারশার চরের 300 বন্যাকবলিত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে যাত্রা শুরু করেছে। সকল ত্রাণ কাজের সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য আমি বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি বগুড়া ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবকদের প্রতি আমার ভালবাসা এবং শ্রদ্ধা জানাই।

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সিরিজকে সামনে রেখে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দীর্ঘদিন ধরে ঘামছেন মুশফিকুর রহিম। জাতীয় ক্রিকেট দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্যও বগুড়ায় থাকাকালীন কয়েকদিনের জন্য বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here