অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন মানবদেহে সফল, তৈরি হচ্ছে এন্টিবডি, রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে সক্ষম

0
58

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অবশেষে বিশ্ব পেতে যাচ্ছে বহুল কাঙ্ক্ষিত ভ্যাকসিন। আশার আলো দেখালো যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ধাপের পরীক্ষার ফলাফলে মিলেছে, এটি নিরাপদ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম। ফল প্রকাশের আগেই যুক্তরাজ্য ১০ কোটি টিকার চাহিদা জানিয়েছে।

চীনের উহানে প্রথম ধরা পড়ে করোনাভাইরাস। এরপর প্রাণঘাতি এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বজুড়ে। সংক্রমনের সঙ্গে বাড়তে থাক মৃত্যুর সারি।


করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক খুঁজতে উঠেপড়ে লাগে বিশ্ব। বেশকটি দেশ এরইমধ্যে তাদের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করলেও যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় সর্বপ্রথম তাদের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করলো। সোমবার আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল দ্যা ল্যানসেটে ভ্যাকসিনটির প্রথম ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফলাফলে জানানো হয়, এটি নিরাপদ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম।


এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে অংশগ্রহণকারীর একটি উপদল গবেষণায় প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ১ম ও ২য় ধাপে ১ হাজার ৭৭ জনের দেহে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল । ভ্যাকসিন প্রয়োগের ফলে দেখা গেছে, ছাপ্পান্ন দিন পর্যন্ত শক্তিধর অ্যান্টিবডি তৈরী করা ও রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে। দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার পর এই ফলাফল আরও বেশি হতে পারে বলে জানিয়েছে ।
গত এপ্রিল মাসে করোনাভ্যাকসিনের প্রথম ধাপের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। এই কাজে অক্সফোর্ডের সঙ্গে যোগ দেয় ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যালস অ্যাস্ট্রাজেনেকা।
এড্রিয়ান হিল, ডিরেক্টর, জেনার ইনস্টিটিউট এট দ্যা ইউনিভার্সিটি অফ অক্সফোর্ড “আমাদের ‍উদ্দেশ্য ছিলো উৎপাদিত ভ্যাকসিন হবে স্বল্পমূল্য এবং খুবই সহজলভ্য। আর অ্যাস্ট্রাজেনেকাকে বেঁছে নেয়ার কারণ হলো, তারা আমাদের উদ্দেশ্যর সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত প্রকাশ করেছে।

করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক হিসেবে অক্সফোর্ডে প্রথম ধাপের সফলতার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এখন পর্যন্ত বিশ্বে তৈরি দুই শতাধিক ভ্যাকসিনের মধ্যে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে ১৫টির। আর সম্ভ্যাব্য ভ্যাকসিন তৈরিতে অক্সফোর্ডকেই এগিয়ে রেখেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর ফল প্রকাশের আগেই ব্রিটিশ সরকার কয়েকটি ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটির ৯ কোটি ডোজের আগাম প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছে। এরমধ্যে ৩ কোটি ডোজের চুক্তির ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন ওষুধ কোম্পানি পিফাইজার ও জার্মানির বায়োএনটেক প্রতিষ্ঠান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here